সন্দেশখালির ঘটনায় স্বতঃপ্রণোদিত মামলা কলকাতা হাইকোর্টের

Read Time:2 Minute

24 Hrs Tv:নিজস্ব প্রতিনিধি : সন্দেশখালির ঘটনায় স্বতঃপ্রণোদিত মামলা করল কলকাতা হাইকোর্ট। ইতিমধ্যে আদালত বান্ধব নিয়োগ করেছেন তিনি। রাজ্যের কাছে রিপোর্টও চেয়েছে আদালত। মামলার পরবর্তী শুনানি ২০ ফেব্রুয়ারি।

মঙ্গলবার বিচারপতি অপূর্ব সিনহা রায় তাঁর পর্যবেক্ষণে উল্লেখ করেন, সন্দেশখালির দুটি বিষয় নিয়ে বিচলিত। প্রথমত, আদিবাসীদের জমি দখল করার অভিযোগ। দ্বিতীয়ত, সেখানকার মহিলাদের মাথায় বন্দুকের নল ঠেকিয়ে ধর্ষণের মতো গুরুতর অভিযোগ। ঘটনায় আইনজীবী জয়ন্ত নারায়ণ চট্টোপাধ্যায়কে আদালত বান্ধব হিসেবে নিয়োগ করেছে আদালত। রাজ্যকে আগামী শুনানিতে এ সংক্রান্ত রিপোর্ট আদালতে পেশ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

শাহজাহান শেখের বাড়িতে ইডি তল্লাশিকে কেন্দ্র করে অশান্তির সূত্রপাত।গত তিনদিন ধরে ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন এলাকার বাসিন্দারা। লাঠি, ঝাঁটা হাতে রাস্তায় নেমেছেন শাহজাহান ও তাঁর সাগরেদদের গ্রেপ্তারির দাবিতে। একের পর এক পোলট্রি ফার্মে আগুন ধরিয়ে দেন উত্তেজিত জনতা। পরিস্থিতি এতটাই উত্তপ্ত হয়ে পড়ে যে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। বন্ধ করে দেওয়া হয় ইন্টারনেট পরিষেবা।

সোমবার, রাজ্যপাল সি ভি আনন্দ বোস সন্দেশখালি পরিদর্শনে যান। রাজ্যপালকে হাতের কাছে পেয়ে কান্নায় ভেঙে পরেন মহিলারা। রাজ্যপালকে রাখি পরিয়ে স্থানীয় মহিলারা ‘ওরা যদি ফিরে আসে’ এমন আশঙ্কার কথা শুনিয়ে বলেন, ‘‘আপনারা চলে গেলে আমাদের যে অবস্থা হবে তা আরও ভয়ঙ্কর হবে। আমরা এরপর মুখ তুলে তাকাতে পারব না। ১৩ বছর ধরে যা অত্যাচার হচ্ছে, তার থেকেও ভয়ঙ্কর হবে’। নিজেদের সম্ভ্রম খোয়ানোর আতঙ্কে থাকা মহিলাদের এই স্বীকারোক্তি সামনে আসার পর রাজ্য পুলিশ-প্রশাসন অস্বস্তির মধ্যে পড়েছে।এই আবহে হাইকোর্টের হস্তক্ষেপ এবং স্বতঃপ্রণোদিত মামলা দায়ের গোটা ঘটনাকে বিশেষ মাত্রা দিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *