EFR ক্যাম্পে মাও হামলার ঘটনায় 13 জনকে যাবজ্জীবন সাঁজা আদালতের

Read Time:2 Minute

24 Hrs Tv:নিজস্ব প্রতিনিধি: ঝাড়গ্রামের শিলদায় ইএফআর শিবিরে মাওবাদী হামলার ঘটনায় মঙ্গলবার 13 জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক। বৃহস্পতিবার বাকিদের সাজা শোনাবে আদালত।মেদিনীপুরের অতিরিক্ত জেলা এবং দায়রা আদালত এই সাজা শুনিয়েছে।

মঙ্গলবারই 23 জন অভিযুক্তকে দোষী সাব্যস্ত করেছিলেন বিচারক। বুধবার সকালে দোষীদের মধ্যে 13 জনকে আনা হয় বিচারক সেলিম শাহীর এজলাসে। আদালতে তোলা হয়েছিল মানস মাহাতো, রাজেশ হাঁসদা, শুকলাল সরেন, কানাই হাঁসদা, শান্তনু সরেন, শ্যামচরণ হাঁসদা, কল্পনা মাইতি (অনু), রাজেশ মুন্ডা, মনসারাম হেমব্রম, ঠাকুরমণি হেমব্রম (তারা), ইন্দ্রজিৎ কর্মকার, কাজল মাহাতো এবং মঙ্গল সরেনকে। আদালতে ঢোকার মুখে তাঁরা নিজেদের নির্দোষ বলে দাবি করেছিলেন। বিচারক দোষীদের কাছে জানতে চান, কিছু বলার আছে কি না। আসামিদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আদালত দোষী সাব্যস্ত করেছে আপনাদের। কী বলার আছে বলতে পারেন। নিজেদের নির্দোষ বলে লাভ নেই। আপনারা এ দিনের রায়ের পর কপি পেয়ে যাবেন। তার পর হাইকোর্টে আবেদন করতে পারেন’। এরপর দোষীরা প্রত্যেকেই নিজের এবং পরিবারের বর্তমান অবস্থার কথা জানান আদালতকে। আদালত দোষী 13 জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের নির্দেশ দিয়েছে। পাশাপাশি, করা হয়েছে 10 হাজার টাকা জরিমানাও। অনাদায়ে আরও তিন মাসের জেল।

2010 সালের 15 ফেব্রুয়ারি সিপিআই মাওবাদীর একটি গেরিলা স্কোয়াড হামলা চালিয়েছিল শিলদা স্বাস্থ্যকেন্দ্র লাগোয়া ইএফআর শিবিরে।মাওবাদী হামলায় 24 জন ইএফআর জওয়ানের মৃত্যু হয়েছিল। আহত হয়েছিলেন আরও তিন জওয়ান। বাহিনীর পাল্টা আক্রমণে প্রাণ হারিয়েছিলেন পাঁচ মাওবাদীও। হামলার পর শিবিরে আগুন ধরিয়ে দিয়েছিল মাওবাদীরা। এই ঘটনার পরেই শিলদা থেকে ইএফআর শিবির তুলে দেওয়া হয়। হামলাস্থলের কাছেই তৈরি করা হয় রাজ্য পুলিশের স্ট্র্যাকো বাহিনীর শিবির।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *