DYFI-এর এসপি অফিস ঘেরাও অভিযান ঘিরে ধুন্ধুমার পরিস্থিতি

Read Time:3 Minute

24 Hrs Tv:নিজস্ব প্রতিনিধি: বসিরহাটে DYFI-এর বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে একেবারে ধুন্ধুমার পরিস্থিতি। বাধা দেওয়ায় পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি। কার্যত রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় গোটা চত্বর। এরপরেই এসপি অফিসের সামনে বসে পড়েন মীনাক্ষী মুখোপাধ্যায় সহ অন্যান্য বাম নেতা কর্মী সমর্থকেরা। ফলে অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে নসিরহাট- তেতুলিয়া রোড। সন্দেশখালিতে লুট হওয়া জমি এবং মহিলাদের সম্মান ও সান্তি ফেরানোর লক্ষ্যে শনিবার বসিরহাটে এসপি অফিস ঘেরাওয়ের ডাক দিয়েছিল বাম যুব সংগঠন।

মীনাক্ষী মুখোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে কর্মী সমর্থকদের মিছিল এগোতে থাকে এসপি অফিসের দিকে। অন্যদিকে মিছিল আটকাতে আগেভাগেই প্রস্তুত ছিল পুলিশ। করা হয় ব্যারিকেড। তবে বামকর্মী সমর্থকেরা ওই ব্যারিকেড টপকে এগোনোর চেষ্টা করেন। পাল্টা বাধা দেয় পুতাও। এই সময়ই পুলিশের সঙ্গে ধাক্কাধাক্কি ও ধস্তাধস্তি শুরু হয়ে যায় আন্দোলনকারীদের। DYFI-এর অভিযোগ লাঠিচার্জ করা হয়েছে কর্মী সমর্থদদের ওপরে। এমনকি লাঠির ঘায়ে বেশ কয়েকজন বাম কর্মী-সমর্থক জখম হয়েছেন বলেও অভিযোগ করা হয়েছে।

ইছামতী সেতু পেরিয়ে বসিরহাটের সংগ্রামপুরে পুলিশ সুপারের দফতরের কাছে পৌঁছন DYFI-এর সমর্থকেরা। ব্যারিকেড করে তাঁদের আটকানোর চেষ্টা করা হয়। কিছু বাম যুবকর্মী ব্যারিকেড ডিঙিয়ে ভেতরে ঢুকে যান বলে খবর। ওই সময় তাঁদের ধাওয়া করে RAF। শুরু হয়ে যায় পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি। ব়্যাফ লাঠিচার্জ করে বলেও অভিযোগ। এমনই পরিস্থিতিতে এগিয়ে আসেন মীনাক্ষী মুখোপাধ্যায়। কথা বলেন পুলিশের সঙ্গে। তাঁকেও ঢুকতে বাধা দেওয়া হয়।

তারপরেই প্রতিবাদে রাস্তায় বসে পড়েন মীনাক্ষী মুখোপাধ্যায়রা। এর জেরে অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে বসিরহাট – তেঁতুলিয়া রোড। যদিও মীনাক্ষীদের দাবি যতক্ষণ না পুলিশ তাঁদের কথা শুনছে ততক্ষণ বিক্ষোভ চলবে। পরে অবশ্য মীনাক্ষী মুখোপাধ্যায় সহ ৫ জনের প্রতিনিধি দলকে বসিরহাটের পুলিশ সুপারের কাছে ডেপুটেশন জমা দেওয়ার জন্য অনুমতি দেওয়া হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *