‘পরিযায়ী লকেট চট্টোপাধ্যায়কে শ্রীরামপুর লোকসভায় চাপিয়ে দেওয়া চলবে না’ পরল পোস্টার

Read Time:2 Minute

24 Hrs Tv:নিজস্ব প্রতিনিধি : লোকসভা নির্বাচন বছর। এই আবহে লকেট চট্টোপাধ্যায়কে শ্রীরামপুর লোকসভায় চাপিয়ে দেওয়া চলবে না! পোস্টারে লেখা হয়েছে, ‘কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে আবেদন বহিরাগত পরিযায়ী লকেট চট্টোপাধ্যায়কে শ্রীরামপুর লোকসভায় চাপিয়ে দেওয়া চলবে না। তৃণমূলকে হারাতে শ্রীরামপুরের ভূমিপুত্র চাই’। এই ইস্যুতে পোস্টার পরল বৈদ্যবাটি, শেওড়াফুলি ও শ্রীরামপুরে। এই ঘটনায় শুরু রাজনৈতিক বিতর্ক। ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটে হুগলিতে জিতে সাংসদ হয়েছিলেন লকেট চট্টোপাধ্যায়। হুগলির বিজেপি সাংসদের বিরুদ্ধে এবার পোস্টার পড়ল শ্রীরামপুর লোকসভা কেন্দ্রে।

পোস্টারে আরও লেখা হয়েছে, ‘দয়া করে কেউ আমাদের তৃণমূল বা কংগ্রেস বলবেন না, আমরা বিজেপি কর্মী’। বিজেপি শ্রীরামপুর সাংগঠনিক জেলা সভাপতি মোহন আদক এনিয়ে বলেন, ‘লকেট চট্টোপাধ্যায় আবার হুগলি থেকে জিতে সাংসদ হবেন। তৃণমূলের আপামর নেতারা দুর্নীতিতে ডুবে আছেন। সেদিক থেকে নজর ঘোরাতেই রাজনৈতিক উদ্দেশ্য নিয়ে এই পোস্টার মারা হয়েছে। এসব করে লাভ হবে না। বিজেপি ৪০০ আসন নিয়ে আবার সরকার গড়বে। নরেন্দ্র মোদী পুনরায় প্রধানমন্ত্রী হবেন’।

তৃণমূল হুগলি জেলা সহ সভাপতি বিধায়ক অসিত মজুমদার এপ্রসঙ্গে বলেন, ‘শুনলাম শ্রীরামপুরে লকেট চট্টোপাধ্যায়কে নিয়ে পোস্টার পড়েছে বিজেপির নাম দিয়ে। বাংলায় ৪২ টাই তৃণমূল জিতবে। কোথাও পালিয়ে বাঁচা যাবে না। হুগলিতে দাঁড়ালে এবার পাঁচ লাখ ভোটে হারবে, তাই শ্রীরামপুরে পালাচ্ছে। ৪২টা আসনেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রার্থী। আর শ্রীরামপুরে কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে দাঁড়ালে লকেটকে বিজেপি-ই হারাবে’। এই নিয়ে শুরু হয়েছে তৃণমূল-বিজেপি তরজা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *