প্রয়াত অভিনেত্রী অঞ্জনা ভৌমিক

Read Time:3 Minute

সৌরভ দত্ত,কলকাতা : দীর্ঘদিন ধরে বার্ধক্য জনিত নানা অসুখে ভুগছিলেন নীলাঞ্জনা সেনগুপ্তের মা অঞ্জনা ভৌমিক। তবে এবার আর শেষরক্ষা হল না। না ফেরার দেশে চলে গেলেন অভিনেত্রী৷ মা-কে হারিয়ে শোকে পাথর নীলাঞ্জনা৷প্রয়াত হলেন অভিনেত্রী অঞ্জনা ভৌমিক। মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিল ৭৯ বছর।

ষাটের দশকের বিখ্যাত সিনেমা মানেই অঞ্জনা ভৌমিক, কখনও মহানায়ক উত্তমকুমারের বিপরীতে, আবার কখনও তাঁর নায়ক সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। সৌন্দর্যের আভিজাত্য আর দৃপ্ত অভিনয় ঘিরে ছিল অভিনেত্রী অঞ্জনাকে। দর্শককে আবিষ্ট করার অপূর্ব ক্ষমতা ছিল তাঁর। ভাল কাজের জন্য দর্শক তাকে মনে রাখবেন এমনটাই মানতেন অঞ্জনা। তাঁর মেয়ে নীলাঞ্জনা ভৌমিক, অভিনেতা যীশু সেনগুপ্তের স্ত্রী মা-কে হারিয়ে আজ বড্ড একা হয়ে গেলেন৷

অঞ্জনা ভৌমিকের দুই মেয়ে নীলাঞ্জনা ও চন্দনা। যীশু সেনগুপ্তের শাশুড়ি ও নীলাঞ্জনা সেনগুপ্তের মা দীর্ঘদিন ধরে নানা ব্যাধির সঙ্গে লড়াই করছিলেন। বার্ধক্যজনিত অসুখের কারনেই ভুগছিলেন তিনি। শুক্রবার রাতে শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা নিয়ে ভর্তি হন বাইপাসের ধারে এক বেসরকারি হাসপাতালে। শনিবার হাসপাতালে সকাল সাড়ে দশটায় তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। ‘চৌরঙ্গী’, ‘থানা থেকে আসছি’, ‘নায়িকা সংবাদ’-এর মতো একাধিক ছবিতে তাঁর অভিনয় এখনও মনে রেখেছেন দর্শক। ষাট-সত্তরের দশকে তিনি সকলের পছন্দের অভিনেত্রী ছিলেন। উত্তম কুমারের সঙ্গে পর্দায় তার কেমিস্ট্রি দর্শক আজও মনে রেখেছে।

ষাট থেকে আশির দশকে বাংলা সিনেমায় তাঁর উজ্জ্বল উপস্থিতি ছিল৷ এখনও তিনি দর্শকদের মণিকোঠায় রয়েছেন৷ বরাবরই ভাল কাজে বিশ্বাস করতেন অভিনেত্রী অঞ্জনা, তাই একটা সময়ের পর আর তেমন ছবি করেননি তিনি।অভিনেত্রীর মৃত্যুতে শোকের ছায়া পড়েছে বিনোদন জগতে৷
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শোক বার্তায় জানান, বিশিষ্ট অভিনেত্রী অঞ্জনা ভৌমিকের প্রয়াণে আমি গভীর শোক প্রকাশ করছি। তিনি আজ কলকাতায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। বয়স হয়েছিল ৭৯ বছর। তিন দশক ধরে বাংলা চলচ্চিত্রে তাঁর অসামান্য অভিনয় আজও দর্শকদের মনে অমলিন। তাঁর অভিনীত উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্র: নিশিবাসর, প্রথম বসন্ত, মহাশ্বেতা, নায়িকা সংবাদ, থানা থেকে আসছি ইত্যাদি।পশ্চিমবঙ্গ সরকার তাঁকে ২০১২ সালে ‘বিশেষ চলচ্চিত্র পুরস্কার’ প্রদান করে। এছাড়া তিনি বহু পুরস্কারে ভূষিত হন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *