অসমের মতো বাংলাতেও ডিটেনশন ক্যাম্প খোলার চক্রান্ত করছে মোদি সরকার: দাবি মমতার

Read Time:2 Minute

24 Hrs Tv:নিজস্ব প্রতিনিধি:লোকসভা নির্বাচনের মুখে CAA ইস্যুতে তোলপাড় রাজ্য রাজনীতি। সোমবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে বলেন, ‘বাংলাতেও অসমের মতো ডিটেনশন ক্যাম্প তৈরির চক্রান্ত করা হচ্ছে’। প্রসঙ্গত, কয়েকদিন ধরে আধার কার্ড বাতিলের ঘটনা সামনে আসছে। এর জেরে মমতাও কেন্দ্রের মোদি সরকারের বিরুদ্ধে খড়গহস্ত।

রাতারাতি বাতিল বহু মানুষের আধার কার্ড। পূর্ব বর্ধমানের জামালপুর, দুর্গাপুরের কাঁকসা, নদিয়া কৃষ্ণগঞ্জ, হুগলির বাসিন্দারাই মূলত গত সপ্তাহ থেকে আধার বাতিলের চিঠি পাচ্ছেন। মমতার দাবি, সবচেয়ে বেশি মতুয়া, তফসিলি ও সংখ্যালঘুদের আধার কার্ডই বাতিল করা হচ্ছে। এই ইস্যুতে মুখ্যমন্ত্রী এদিন প্রশ্ন তুলে বলেন, আধার বাতিল কি কেন্দ্রের NRC চালুর পূর্বাভাস? অসমের মতো বাংলাতেও কি ডিটেনশন ক্যাম্প খোলার চক্রান্ত করছে কেন্দ্র ? এভাবেই একের পর এক প্রশ্নবাণ ছুঁড়ে দিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী।

যদিও আধার বিতর্কে ইতিমধ্যে নড়েচড়ে বসেছে মোদি সরকার। জানা গিয়েছে, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং মন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণবের সঙ্গে কথা হয়েছে রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর। তাঁর দাবি, রাঁচির আঞ্চলিক কার্যালয়ে যান্ত্রিক ত্রুটির জেরে আধারের সমস্যা তৈরি হয়েছে। যদিও রাজ্য বিজেপি সভাপতি সুকান্ত মজুমদারের দাবি, কারও আধার কার্ডই বাতিল হয়নি। যাঁরা আধার কার্ড বাতিলের সমস্যায় পড়েছেন তাঁদের কাছে ক্ষমাও চেয়ে বনগাঁর সাংসদ শান্তনু ঠাকুর সোমবার রাতের মধ্যেই সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিয়েছেন। আপাতত এই আশ্বাসের দিকেই তাকিয়ে ভুক্তভোগীরা। যদিও প্রয়োজনে আধারের বিকল্প কার্ড তৈরির পাল্টা আশ্বাস দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঙ্গলবার থেকে রাজ্য সরকারের তরফে খোলা হচ্ছে পোর্টালও।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *