শুভেন্দুর ‘এনকাউন্টার’ তত্ত্বে গলা মেলালেন প্রদেশ যুব কংগ্রেস সভাপতি আজ়হার মল্লিক

Read Time:2 Minute

24 Hrs Tv:নিজস্ব প্রতিনিধি: যুব কংগ্রেসের বিক্ষোভের ইস্যু ছিল সন্দেশখালির ঘটনায় দোষীদের শাস্তি এবং নির্বাচনী বন্ডের তথ্য দ্রুত প্রকাশ্যে আনতে হবে। কিন্তু ঘটনার ঘনঘটায় ওই দাবি পাল্টে গিয়ে ‘এনকাউন্টার’ তত্ত্ব সামনে উঠে আসতেই বিতর্কের শুরু।

আসলে প্রদেশ যুব কংগ্রেসের ডাকে মিছিলে প্রদেশ যুব কংগ্রেস সভাপতি আজ়হার মল্লিক দাবি করেন, ‘সন্দেশখালিতে যারা মহিলাদের ওপরে নির্যাতন চালিয়েছে, তাদের দলমত না দেখে শাস্তি দিক সরকার। এদের এনকাউন্টার করে দেওয়া হোক! অভিযুক্তদের অবিলম্বে শাস্তি পাওয়া দরকার’। এতেই আগুনে ঘি পড়েছে।

সাম্প্রতিক সময়ে দেখা গিয়েছে আইন হাতে তুলে নেওয়ার প্রবণতা আর এই প্রবণতা থেকেই এনকাউন্টার তত্ত্বে গলা ফাটাতে দেখা গিয়েছে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকে। মাটিগাড়ায় নাবালিকা গণধর্ষণে অভিযুক্তকে এনকাউন্টারের নিদান দেন শুভেন্দু। বিধানসভায় দাঁড়িয়ে বলেন, ‘নাবালিকা ধর্ষণে অভিযুক্তদের পুলিশকে দিয়ে এনকাউন্টার করানো’। আইন প্রণেতা হয়ে কী ভাবে তিনি পুলিশকে আইন হাতে তুলে নিতে বলতে পারেন তা নিয়ে বিতর্ক রয়েই যাচ্ছে। বিধানসভায় মাটিগাড়ায় নাবালিকাকে নৃশংসভাবে খুনের ঘটনায় গ্রেফতার অভিযুক্ত আব্বাসের শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ দেখায় বিজেপি। পুলিশমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবির পাশাপাশি বিক্ষোভ দেখিয়ে বিধানসভা থেকে ওয়াক আউট করেন বিজেপি বিধায়করা। ওই সময় শুভেন্দুর মুখে এনকাউন্টার তত্ত্বে জোর সওয়াল করতে শোনা যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *