সন্দেশখালিতে পুলিশের টহলদারির মাঝেই ১৪৪ ধারা অগ্রাহ্য করে বিক্ষোভ মহিলাদের

Read Time:3 Minute

24 Hrs Tv:নিজস্ব প্রতিনিধি: কেটে গেল ৫১ দিন, এখনও অধরা সন্দেশখালির ‘বেতাজ বাদশা’ শাহজাহান শেখ। দফায় দফায় চলছে বিক্ষোভ শাহজাহান এবং তাঁর ভাই সিরাজউদ্দিনকে গ্রেফতারের দাবিতে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে জারি করা হয়েছে ১৪৪ ধারা। এরপরই বিক্ষোভ সামাল দিতে সিসিটিভি ক্যামেরা বসিয়েছে পুলিশ। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে চলছে রাজ্য পুলিশের রুটমার্চ ৷ গ্রামে বসেছে পুলিশের সহায়তা ক‍্যাম্প।

বেড়মজুর গ্রামে ঢোকার রাস্তার মোড়ে মোড়ে এই সিসিটিভি ক‍্যামেরা বসানো হয়েছে। মূলত নজরদারি চালাতেই পুলিশের তরফে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। কোথাও কোনও জমায়েত হলে কিংবা অবাঞ্ছিত কোনও ব‍্যক্তি গ্রামে ঢোকার চেষ্টা করলে তা সিসিটিভি ক‍্যামেরার মাধ্যমে ঠেকানো সম্ভব হবে বলেই মনে করছেন পুলিশের শীর্ষকর্তারা। কারণ, যত দিন যাচ্ছে সন্দেশখালিতে ক্ষোভের পারদ ততই বাড়ছে। তারইমধ্যে সন্দেশখালি ছাড়িয়ে গ্রামবাসীদের ক্ষোভের আঁচ এসে পৌঁছেছে বেড়মজুর, ঝুপখালি এবং কাছারি এলাকাতে। সেখানেও শুক্রবার রাস্তায় গাছের গুঁড়ি ফেলে আন্দোলনে নামেন মহিলারা।

ঝুপখালি এবং কাছারি এলাকাতেই শাহজাহানের ভাই শেখ সিরাজউদ্দিনের বিরুদ্ধে ভুরিভুরি অভিযোগ বাসিন্দাদের। যার জেরে সিরাজউদ্দিনের ভেড়ির আলাঘরে ভাঙচুর চালিয়ে আগুন ধরিয়ে দেন গ্রামবাসীরা। শেখ সিরাজউদ্দিনের বিরুদ্ধে জোর জুলুম, মারধর, আবাস ও জবকার্ডের টাকা আত্মসাতের মতো একাধিক অভিযোগ সামনে আসছে। সুবিচার চেয়ে শুক্রবারের মতো শনিবারেও মাঝেরপাড়ায় লাঠি, ঝাঁটা হাতে রাস্তায় নামেন মহিলারা। ১৪৪ ধারা অগ্রাহ্য করেই এদিন মহিলারা রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখায়।

শনিবার সকালে পুলিশের তরফে সহায়তা ক‍্যাম্প বসানো হয়েছে গ্রামের রাস্তার ধারে। যেখানে গ্রামবাসীরা তাঁদের যাবতীয় অভাব, অভিযোগ জানাতে পারবেন। ইতিমধ্যে শাহজাহানের ভাই সিরাজউদ্দিন এবং তাঁর দলবলের বিরুদ্ধে জমি দখল-সহ বেশকিছু অভিযোগ ক‍্যাম্পে জমা পড়েছে বলেই খবর প্রশাসন সূত্রে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *