‘রাজ্যজুড়ে কুড়মিদের জনসংখ্যা নিয়ে সমীক্ষার কাজ শুরু হবে’: আশ্বাস মমতার

Read Time:2 Minute

24 Hrs Tv:নিজস্ব প্রতিনিধি:গত লোকসভা নির্বাচনে এই জঙ্গলমহল কার্যত শূন্য হাতে ফিরিয়েছিল তৃণমূলকে। সেই পরিস্থিতি বদলাতে এবার সফরের শুরুতেই জঙ্গলমহলের জ্বলন্ত কুড়মি সমস্যা মেটাতে উদ্যোগী হলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মমতা এদিন ঘোষণা করেছেন, রাজ্যজুড়ে কোথায় কোথায় কুড়মিরা বসবাস করেন, তাদের জনসংখ্যা কত, সেসব নিয়ে সমীক্ষার কাজ শুরু করছে সরকার। যা কুড়মিদের দাবি পূরণের লক্ষ্যে কেন্দ্রর ওপর চাপ বাড়ানোর প্রক্রিয়া হিসাবে দেখা হচ্ছে। যদিও মুখ্যমন্ত্রী এদিন পুরুলিয়ার সভা থেকে বলেন, ‘ঝগড়া আমরা লাগাতে চাই না। মাহাতোদের (মাহাতো কুড়মি জনজাতিভুক্ত) দীর্ঘদিনের দাবি আদিবাসী হওয়ার। এটা আমার হাতে নেই। আমাকে দোষ দেবেন না। ভোট এলে কেউ কেউ আদিবাসী এবং মাহাতোদের ঝামেলা লাগানোর চেষ্টা করে। আমরা সেটা চাই না’। একই সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, কারও যদি কোনও সমস্যা থাকে তাহলে সরাসরি তাঁর কাছে অভিযোগ জানাতে পারবেন।

রাজ্য সরকার গত কয়েক বছরে একাধিকবার কেন্দ্রের কাছে কুড়মিদের দাবি নিয়ে দরবার করেছে। একই সঙ্গে সারি ও সারণা ধর্মের স্বীকৃতির দাবিতেও কেন্দ্রকে চিঠি লিখেছেন মুখ্যমন্ত্রী। এই সারি এবং সারণা ধর্মের স্বীকৃতি আবার আদিবাসীদের দীর্ঘদিনের দাবি। অর্থাৎ কুরমিদের পাশাপাশি আদিবাসীদের দাবি নিয়েও সরব মুখ্যমন্ত্রী। তিনি এও জানিয়েছেন, দ্রুত সারি এবং সারণা ধর্মকে স্বীকৃতির দাবি পূরণ না হলে মাঠে নেমে আন্দোলন হবে। আসলে মমতা চাইছেন, লোকসভায় আদিবাসী এবং কুড়মি দুই জনজাতিকেই কাছে টানতে। সেটা করতে পারলে বিজেপির গড়েই গেরুয়া শিবিরকে ভালোমতো ধাক্কা দেওয়া যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *