Read Time:3 Minute

আদালতের অনুমতি পেতেই জ্ঞানবাপী মসজিদের বিতর্কিত অংশে দেবতার উপাসনা শুরু

24 Hrs Tv:নিজস্ব প্রতিনিধি : ত্রিশ বছর আগে বাবরি মসজিদ ধ্বংসের পর সাম্প্রদায়িক উত্তেজনার আবহে বন্ধ হয়েছিল জ্ঞানবাপী মসজিদের বিতর্কিত অংশের দরজা। কিন্তু ওই দরজা বারাণসী আদালতের নির্দেশে খুলে গিয়েছে বুধবার রাতেই। মসজিদের বেসমেন্টে ‘ব্যাস কা তয়খানা’য় গভীর রাতেই দেবতার উপাসনা শুরু করে দিল হিন্দুপক্ষ। জানা যাচ্ছে, আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি থেকে সাধারণ ভক্তদের জন্যও খুলে দেওয়া হতে পারে মসজিদের ভূগর্ভস্থ ওই কক্ষ।

বুধবার ‘ব্যাস কা তয়খানা’ চত্বরে ভক্তদের উপাসনার অনুমতি দিয়েছিল আদালত। পাশাপাশি সাত দিনের মধ্যে এই বিষয়ে জেলা প্রশাসনকে ব্যবস্থা নিতে বলেন বিচারক। দেখা যায় কয়েক ঘণ্টা পরেই আদালতের নির্দেশকে হাতিয়ার করে মসজিদে ভিড় জমান হিন্দুপক্ষ। মধ্য রাতেই শুরু হয় পুজোপাঠ, আরতি।

পরিস্থিতির উত্তাপ অনুভব করে বাড়তি পুলিশ মোতায়েন করেছে স্থানীয় প্রশাসন। গোটা রাজ্যেই জারি হয়েছে সতর্কতা। মন্দিরে পুজোর বিষয়টি সামনে আনেন হিন্দুপক্ষের আইনজীবী বিষ্ণু শংকর জৈন। এক্স হ্যান্ডেলে লেখেন, ‘আদালতের নির্দেশ পালন করেছেন এসজি। প্রতিমা স্থাপনের পর কেভিএম ট্রাস্টের একজন পূজারি ‘শয়ন আরতি’ করেন। এছাড়াও সকল দেবতার নিত্য আরতি- সকালের মঙ্গলা আরতি, ভোগ আরতি, সন্ধ্যা আরতি, সূর্যাস্তের সন্ধ্যা আরতি, শয়ন আরতি ইত্যাদি সম্পন্ন হচ্ছে’।

জ্ঞানবাপী মসজিদটি রয়েছে কাশী বিশ্বনাথ মন্দিরের ঠিক বিপরীতে। ওই মন্দিরের সামনে তয়খানার দিকের রাস্তায় রয়েছে নন্দীর একটি মূর্তি। যেটিকে বৃহস্পতিবার রাত বারোটার সময় নতুন করে প্রকাশ্যে আনা হয়। জ্ঞানবাপীতে এএসআইয়ের সমীক্ষায় যে মূর্তিগুলি উদ্ধার হয়েছে, সেগুলিকে স্থাপন করা হয় রাতেই। এর পরেই দেবতার প্রার্থনা শুরু হয়। প্রসাদ নিবেদন করেন পূজারি।

প্রসঙ্গত, এএসআইয়ের রিপোর্টে বলা হয়েছে মসজিদের ওজুখানা চত্বরে অসম্পূর্ণ শিবলিঙ্গের অস্তিত্বও পাওয়া গিয়েছে। একই সঙ্গে হনুমান, বিষ্ণু, নান্দীর মূর্তিও থাকার কথা জানাচ্ছে রিপোর্ট। রয়েছে মধ্যযুগীয় দেবদেবীর মূর্তি ও ভাস্কর্যও। অর্ধেক হনুমান ও অর্ধেক সাপের দৈব ভাস্কর্যও সেখানে মিলেছে। যা থেকে মনে করা হচ্ছে, ওই চত্বরে বিভিন্ন দেবদেবীর সন্ধান পাওয়া সেখানে গড়ে ওঠা সংস্কৃতির একটি মিশ্রণের দিকেই ইঙ্গিত করছে। এই অবস্থায় হিন্দুপক্ষকে পুজোর অনুমতি দেওয়া তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *