কোন চোখে দেখেন তৃণমূল বিধায়ক রত্না চট্টোপাধ্যায় শোভন চট্টোপাধ্যায়কে

Read Time:2 Minute

হেভিওয়েট মন্ত্রী, কাউন্সিলর, কলকাতা পুরনিগমের মেয়র, দলের গুরুত্বপূর্ণে পদ ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার দায়িত্ব, এতকিছু পেয়েছিলেন শোভন চট্ট্যোপাধ্যায়। কিন্তু আচমকাই রাজ্যে ২০১৯ বিজেপির উত্থান দেখে ‘বিশেষ বান্ধবী’ বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে দিল্লি উড়ে গিয়ে বিজেপিতে যোগ দেন শোভনবাবু। তাঁর ইচ্ছা ছিল রত্না চ্যাটার্জীর বিরুদ্ধে লড়াই করে চ্যালেঞ্জ দেওয়া। অপরদিকে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিজেপিতে গ্রহণযোগ্য করতে গিয়ে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সঙ্গে মনোমালিন্য হয় শোভনের। যার জেরে বছর দুই আগে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে গেলেও নিষ্ক্রিয় ছিলেন শোভন চট্ট্যোপাধ্যায়। তাই ২০২১ নির্বাচনে দু’একবার প্রচার করলেও রাজনীতির আঙিনায় হারিয়ে গিয়েছেন শোভন। আজ আচমকাই ফের খবরে চলে এলেন শোভন। সৌজন্যে তার স্ত্রী রত্না চট্ট্যোপাধ্যায়। বেহালা পূর্ব অর্থাত্‍ শোভনের আসনেই লড়াই করে জয়ী হয়েছেন তিনি। কিন্তু শোভন দলে ফিরলে তাঁর অবস্থান কী হবে? এদিন বিধানসভায় সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে তিনি জানিয়েছেন, ‘শোভন-বৈশাখী বলেছিলেন, আমি থাকলে ওঁরা তৃণমূলে ফিরবেন না। আমি কিছুই বলিনি। আমি কিন্তু বর্তমানে তৃণমূলের বিধায়ক নির্বাচিত হয়েছি। আমাকে আর দল থেকে তাড়ানো যাবে না। তবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বললে বেহালা পূর্ব ছাড়তে রাজি। অন্য কারোর জন্য এই আসন ছাড়ব না আমি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *