Read Time:3 Minute

‘বাম জমানার দায় তৃণমূল কংগ্রেস নেবে না’: কুণাল ঘোষ

24 Hrs Tv:নিজস্ব প্রতিনিধি : সম্প্রতি দিল্লিতে বসে রাজ্য বিজেপির সভাপতি সুকান্ত মজুমদার মমতা বন্দ্যোপাধায়ের সরকারের বিরুদ্ধে কেন্দ্রীয় প্রকল্পের টাকা নয়ছয়ের অভিযোগ তুলেছেন। দাবি করেন,কেন্দ্রীয় অনুদানে রাজ্যে যদি কোনও প্রকল্প হয়, তবে সেক্ষেত্রে কাজ শেষ হওয়ার পর ইউটিলাইজেশন সার্টিফিকেট জমা দিতে হয় রাজ্য সরকারকে। সুকান্ত অভিযোগ এনে বলেন, বাংলার তরফে কোনও প্রকল্পের এই সার্টিফিকেট জমা দেওয়া হয়নি। যদিও সুকান্তর আনা এই অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত শুক্রবার রেড রোডের ধরনা মঞ্চে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সুকান্তর অভিযোগকে খন্ডন করে বলেন,’ক্যাগ রিপোর্ট সম্পূর্ণ মিথ্যা’। আর রবিবার তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ বলেছেন, ‘দায় তৃণমূল সরকারের নয়’।

রবিবার সকালে তৃণমূল ভবন থেকে সাংবাদিক সম্মেলন করে কুণাল ঘোষ বলেন, ‘ক্যাগ রিপোর্ট নিয়ে মিথ্যাচার করা হচ্ছে যে রাজ্য সরকার ইউটিলাইজেশন পেপার দেননি। তিনি বলেন এটা সম্পূর্ণ মিথ্যে কথা। ২০০২-০৩ থেকে ২০১০-১১ আর্থিক বছরে বাম সরকার ছিল। তিনি বলেন সেই সময়ের দায় তৃণমূল সরকারের নয়। তিনি আরও বলেন, সরকার সঠিক রিপোর্ট পাঠিয়ে দিয়েছেন বলেই পরের বারের টাকা এসেছে। কুণাল ঘোষ আরও বলেন, ‘মা মাটি মানুষের সরকার তারা কেন্দ্রের টাকা যেখানে ব্যবহার হয়েছে তার ইউটিলাইজেশন সার্টিফিকেট সঠিক জায়গায় পাঠিয়ে দিয়েছেন। কোনও কিছু পেন্ডিং নেই’। তিনি অভিযোগ করেন, ক্যাগ ২০০২-০৩ টাকেও ইনক্লুড করছে, যাতে বিরোধীরা কুৎসা করতে পারে। তাঁর দাবি, ‘বাম জমানার দায় তৃণমূল কংগ্রেস নেবে না’।

ক্যাগ রিপোর্টকে বিজেপির কথায় ‘রাজনৈতিক দলিল’ বলে দাবি করে কুণাল ঘোষ বলেন আগামী দিনে ক্যাগ এই কাজ থেকে বিরত থাকবে। এরই সঙ্গে পাল্টা অভিযোগে দলীয় মুখপাত্র পাল্টা অভিযোগ তুলেছেন,ডবল ইঞ্জিন সরকার যেখানে রয়েছে তাদের ভুড়ি ভুড়ি ইউটিলাইজেশন সার্টিফিকেট দেওয়া বাকি রয়েছে।

প্রসঙ্গত, কয়েকদিন আগে দেশের রাজধানীতে বিজেপির সদর দফতরে সাংবাদিক বৈঠকে গ্রামোন্নয়ন, নগরোন্নয়ন এবং শিক্ষাদপ্তরে সবচেয়ে বেশি দুর্নীতি হয়েছে বলে দাবি করেন সুকান্ত মজুমদারের। এভাবে প্রায় ২ কোটি টাকারও বেশি দুর্নীতি হয়েছে। আদৌ প্রকল্পের কাজ শেষ হল কিনা, শেষ না হলে ওই প্রকল্পের জন্য বরাদ্দ টাকা কোথায় গেল, তা জানেন না কেউই। এরপর থেকেই ক্যাগ রিপোর্ট ইস্যুতে বঙ্গ রাজনীতি উত্তাল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *