বেড়মজুরে তৃণমূল নেতার খড়ের গাদায় আগুন লাগানোর অভিযোগ

Read Time:3 Minute

24 Hrs v:নিজস্ব প্রতিনিধি: ক্ষোভের আগুনে পুড়ে ছাই খড়ের গাদা। সোমবার ফের নতুন করে ক্ষোভের আগুন সন্দেশখালির বেড়মজুরে। মূলত বেড়মজুরে তৃণমূল নেতা হলধর আড়ির বাড়িতে আগুন লাগানোর অভিযোগ। তৃণমূল নেতা হলধর আড়ির বাড়ি সংলগ্ন খড়ের গাদায় আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। অজিত মাইতিকে সরিয়ে তৃণমূল বেড়মজুর অঞ্চলে হলধর আড়ি সহ আরেকজন ব্যক্তিকে কনভেনর নিযুক্ত করেছে।

এদিন সকালে দলীয় পদ থেকে সরানোর পরেই গ্রেফতার হলেন সন্দেশখালির তৃণমূল নেতা অজিত মাইতি।সোমবার সকালে অজিতকে গ্রেফতার করে সন্দেশখালি থানার পুলিশ। আজই তাঁকে বসিরহাট আদালতে পেশ করা হবে, এমনটাই জানা যাচ্ছে। অজিত মাইতির বিরুদ্ধে জোর করে জমি দখল-সহ মারধর , হুমকির অভিযোগ করা হয়েছে। বেড়মজুরে পুলিশ ক্যাম্পে অভিযোগ দায়ের হয়।

রবিবার দুপুরে গ্রামবাসীদের তাড়া খেয়ে স্থানীয় এক সিভিক ভলান্টিয়ারের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছিলেন বেড়মজুরের তৃণমূল নেতা অজিত মাইতি।সন্ধ্যায় অজিত মাইতিকে আটক করে মিনাখাঁ থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। চাপের মুখে দুর্নীতির দায় শেখ সিরাজউদ্দিনের ঘাড়ে চাপিয়ে অজিত মাইতির দাবি, ২০১৯-এ মারধর করে তাঁকে তৃণমূলে যোগদান করানো হয়েছে। এদিকে, অজিতকে সরিয়ে দেওয়ার দাবি করে মন্ত্রী পার্থ ভৌমিক স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, অত্যাচার করলে দল পাশে নেই। সেই অজিত মাইতিকেই এদিন গ্রেফতার করল পুলিশ।

গ্রামবাসীদের রোষের মুখে পরে তাড়া খেয়ে স্থানীয় এক সিভিক ভলান্টিয়ারের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছিলেন বেড়মজুরের তৃণমূল নেতা অজিত মাইতি। প্রায় ৪ ঘণ্টা ধরে পুলিশ কার্যত সেই বাড়ি ঘিরে রাখে। অন্ধকার নামতেই নাটকীয়ভাবে অজিত মাইতিকে ওই বাড়ি থেকে আটক করেছিল পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে খবর, তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে জমি দখলের পাশাপাশি, অন্যের জমি জালিয়াতি করে বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। জমি দখলের অভিযোগে, শুক্রবারই বেড়মজুরের তৃণমূল নেতা অজিত মাইতির বাড়িতে চড়াও হয়েছিলেন গ্রামবাসীরা। জুতো পেটা করা হয়েছিল তাঁকে। গ্রামবাসীদের চাপের মুখে পরে অজিতের স্বীকারোক্তি ‘দুর্নীতি হয়েছে’। বেগতিক বুঝে নিজেকে ‘পচা আলুর’ সঙ্গে তুলনা করতে দেখা যায় বহিস্কৃত তৃণমূল নেতা অজিত মাইতিকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *