থরে থরে বিয়েবাড়ির নেমন্তন্ন পাচ্ছেন? এবার রাজকীয় ভুরিভোজে ওজন থাকবে নিয়ন্ত্রণে

Read Time:2 Minute

24Hrs Tv ওয়েব ডেস্ক : রেশমি খাতুন : শীতকালে মানেই বিয়ের মরশুম, সাথে প্রচুর খাওয়াদাওয়া। এমনিতেই বাঙালির খাওয়া রসদ চিরকালেরই। তাও আবার যদি বিয়েবাড়ি হয় তো খাওয়া নিয়ে নো কমপ্রোমাইস। বিয়েবাড়ির এলাহী আয়োজনে, খাবারের গন্ধে জিভে জল আসে। ভাবছেন কি করবেন! বিয়েবাড়ির খাবার মানেই অধিক তেলমশলা। গ্যাস অম্বল তো নিত্যদিনের সঙ্গী। চুটিয়ে খাবার খেতে হলে ভুলে যেতে শারীরিক অবস্থান, আবার যদি স্বাস্থের দিকে ধ্যান দেওয়া যায় তবে রাজকীয় খাবার উপভোগ থেকে নিজেকে বঞ্চিত করতে হবে। লোভনীয় খাবার থেকে বেশিক্ষণ মুখ ঘুরিয়ে থাকা যায় কি ? তবে যদি কিছু নিয়ম ধরে রাখা যায় তো অনায়াসেই ওজন গ্যাস-অম্বল থাকবে নিয়ন্ত্রণে। বিয়েবাড়ির লোভনীয় খাবার খেতে গেলে একটু তো নিয়ম করে চলতেই হবে। খাওয়াদাওয়ার পাশাপাশি প্রত্যেকদিন চাই শরীরচর্চা। ১)খাবার এবং স্বাস্থের মধ্যে ভারসাম্য রাখতে উপায় হল শরীরচর্চা। শরীরচর্চাই পারে শরীর সুস্থ রাখতে। ২) জল- পর্যাপ্ত পরিমাণে জল খেতে হবে। জল আমাদের শরীরে অপরিহার্য উপাদান। জল হজম শক্তিতেও সাহায্য করে। শীতকালে জলের পরিমাণ কমিয়ে দিলে চলবে না।

৩) ঘুম নিয়ে আমাদের বাজে অভ্যেস তৈরী করলে হবে না। সঠিক সময়ে ঘুম খুব গুরুত্বপূর্ণ। রাত্রে অন্তত ঘুমোনোর সাড়ে তিনঘন্টা আগে খাবার খাওয়া উচিত। কেননা রাতে আমাদের বিপাক ক্রিয়া কমে আসে। তাই ভালো ঘুম আনতে ও বিপাক ক্রিয়া বজায় রাখতে হাঁটাচলা করা প্রয়োজন। ৪) বেশি করে ফল খাওয়া উচিত। মরশুমের সমস্ত ফল আমাদের খাদ্যতালিকায় রাখা উচিত। ৫) অত্যধিক তেলমশলা যুক্ত খাবার কমিয়ে দেওয়া উচিত। যদি খুব বেশি তেলমশলা হয়ে থাকে তবে অবশ্য শশা বা পেঁপে বা হজমশক্তিতে সাহায্য করে এমন ফল বা পানীয় গ্রহন করা উচিত। ৫) শারীরিক অবস্থার পাশাপাশি মানসিক স্বাস্থের প্রতি ধ্যান দেওয়া প্রয়োজন। ৬)মিষ্টি জাতীয় খাবার যতটা সম্ভব কমানো উচিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *