ঈদের বাজার সেরে আসার পথে খুন ১ তৃণমূল কর্মী, আহত ২

Read Time:3 Minute

24 Hrs Tv:নিজস্ব প্রতিনিধি: লোকসভা নির্বাচনের আগে খুন তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্যের স্বামী! গুরুতর আহত সেই পঞ্চায়েত সদস্যা এবং আরও দু’জন। বুধবার রাতে ঈদের বাজার সেরে বন্ধুর গাড়িতে বাড়ি ফিরছিলেন স্থানীয় পঞ্চায়েতের তৃণমূল সদস্যা তাগিরা বিবি এবং তাঁর স্বামী জহিদুল শেখ। গাড়িতেই ছিলেন তাঁদের পুত্র ও পারিবারিক এক বন্ধু। ৩৫ বছরের জহিদুলই গাড়ি চালাচ্ছিলেন। বাড়ি থেকে কিছুটা আগেই রাস্তায় গাছ ফেলে রেখেছিল দুষ্কৃতীরা।

গাড়ি দাঁড়াতেই রাস্তা আটকে দাঁড়ায় জনা দশেক দুষ্কৃতী। শুরু হয় গাড়ি লক্ষ্য করে বোমাবাজি। এর পরে গাড়ির দরজা খুলে যাত্রীদের এলোপাথাড়ি কোপাতে শুরু করে দুস্কৃতিরা। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় পঞ্চায়েত সদস্যার স্বামীর জহিদুলের। গুরুতর জখম হন পঞ্চায়েত সদস্যা-সহ অন্য তিন জন। চিৎকার শুনে স্থানীয়েরা ছুটে এসে চার জনকে উদ্ধার করে বেথুয়াডহরি হাসপাতালে নিয়ে যান। চিকিৎসকেরা সেখানে জহিদুলকে ‘মৃত’ বলে ঘোষণা করেন। অন্যদের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় শক্তিনগর জেলা হাসপাতাল স্থানান্তর করা হয়।

স্থানীয় সূত্রে খবর, এলাকার একটি জমি দখলকে কেন্দ্র করে দীর্ঘ দিন ধরেই নদিয়ার নাকাশিপাড়া থানা এলাকার হরনগর গ্রাম পঞ্চায়েতে জুব্বরের গোষ্ঠী এবং তার বিরোধী গোষ্ঠীর গন্ডগোল ছিল। এলাকার পরিচিত ‘বাহুবলি’ জুব্বরের ‘ডান হাত’ বলেই পরিচিত ছিলেন নিহত জাহিদুল শেখ। দু’পক্ষই তৃণমূলের সক্রিয় কর্মী।আহত তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্যা তাগিরা বৃহস্পতিবার বলেন, “রাস্তায় খেজুরের গাছ ফেলে গাড়ি আটকে দিয়েছিল। আমার স্বামী মুখ বার করে দেখতে গেলেই বোমা চার্জ করে। মুহূর্তের মধ্যে ১০-১২ জন ছুটে এসে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আমাদেরকে কোপাতে শুরু করে। দুষ্কৃতীরা প্রত্যেকে পরিচিত। তারা সিপিএম এবং কংগ্রেসের আশ্রিত।” কৃষ্ণনগর লোকসভা কেন্দ্রের সিপিএম প্রার্থী এমএস সাদি ঘটনা প্রসঙ্গে বলেন, “বিভিন্ন এলাকায় তৃণমূলের মস্তান বাহিনী জমি-সহ একাধিক আর্থিক কারণে নিজেদের মধ্যে গন্ডগোলে যুক্ত। ভাগাভাগি নিয়ে গন্ডগোলের জেরে এমনটা হয়ে থাকতে পারে। এই ঘটনার সঙ্গে সিপিএম কোনও ভাবেই যুক্ত নয়।”আক্রান্তদের অভিযোগ, কংগ্রেস এবং সিপিএম আশ্রিত দুষ্কৃতীরা এই হামলা চালিয়েছে। ঘটনার দায় অস্বীকার করেছে দু’দলই। মৃতদেহ ময়নাতদন্তে পাঠিয়ে, ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *