‘পার্টি বাঁচিয়ে রাখুন, নেতাদের বাঁচান: ‘ দিলীপ ঘোষ

Read Time:3 Minute

24 Hrs Tv: নিজস্ব প্রতিনিধি: শিয়রে লোকসভা নির্বাচন। ডান-বাম সমস্ত রাজনৈতিক দলই নিজেদের ঘুটি সাজাতে ব্যস্ত। ছলছে রাজনৈতিক অঙ্ক কষা। এমন আবহে শনিবার মেদিনীপুরের বিজেপি সাংসদ দিলীপ ঘোষ প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন। সম্প্রতি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজের স্বভাব সিদ্ধ ভঙ্গিতে দিলীপ ঘোষ জানান, ‘উনি ২০১৯ সালেও এক কথা বলেছিলেন। ওঁর ১২টা আসন আমরা আগেই নিয়ে নিয়েছি। আরও ১২টা গেলেই উনি ধাক্কা খেয়ে নিজেই চুপ করে যাবেন। আর দিল্লির কথা বলবেন না। পার্টি বাঁচিয়ে রাখুন, নেতাদের বাঁচান। যেভাবে উইকেট পড়ছে আর যেভাবে ইডি সিবিআই সক্রিয় হয়ে উঠেছে, ভোটের আগে আর নেতা থাকবে? মানুষ চাইছে, বাংলা থেকে এরা পরিষ্কার হোক।’

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার মুর্শিদাবাদ জেলা নেতৃত্বের সঙ্গে কালীঘাটের দলীয় কার্যালয়ে বৈঠক করেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই বৈঠকে লোকসভা নির্বাচনের আগে ইন্ডিয়া জোট নিয়ে জল্পনা উস্কে দেন খোদ তৃণমূল নেত্রী। স্পষ্ট জানান, বঙ্গে তৃণমূলকেই সর্বাধিক গুরুত্ব দিতে হবে। নইলে তৃণমূল ৪২ আসনে একাই লড়তে প্রস্তুত। এভাবেই ইন্ডিয়া জোটের শরিক কংগ্রেসের প্রদেশ নেতৃত্বকেও কার্যত বার্তা দিলেন তিনি। প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীররঞ্জন চৌধুরীকে গুরুত্ব দিতে নারাজ মমতা। অধীর ‘কোনও ফ্যাক্টর নয়’ বলে মন্তব্য তৃণমূল সুপ্রিমোর।

নির্বাচনের আগে বিভিন্ন জেলা সংগঠনকে কালীঘাটে ডেকে বৈঠক করছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, থাকছেন অভিষেকও। এর আগে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা সংগঠনের বৈঠকে একাধিক গুরুত্বপূর্ণ বার্তা দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুক্রবার মুর্শিদাবাদের দলীয় সংগঠনের সঙ্গে বৈঠকে মমতার বক্তব্য, ‘ইন্ডিয়া জোটের অন্যতম বড় শরিক আমরা। সেখানে আমাদের বাদ দিয়ে এ রাজ্যে আরএসপি-সিপিআইকে এত প্রাধান্য দেওয়া হলে, আমাদের গুরুত্ব না দেওয়া হলে আমরা আমাদের মতো ভাবব। সেক্ষেত্রে ৪২ আসনে লড়াইয়ের প্রস্তুতি নিতে হবে।’

উল্লেখ্য, ইন্ডিয়া জোটের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ শরিক তৃণমূল কংগ্রেস। জানা গিয়েছে, কংগ্রেসের তরফে আরও বেশি আসন চাওয়া হয়েছে। ফলে জোট সমীকরণ চূড়ান্ত হওয়া দূর অস্ত, একাই লড়তে প্রস্তুত তৃণমূল। মুর্শিদাবাদের দলীয় সংগঠনের সঙ্গে বৈঠকে এমনই বার্তা স্পষ্ট করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *