‘ক্ষমতায় এলে মা-বোনেদের সম্মানে লক্ষীর ভাণ্ডারকে আইন করব’, মন্তব্য সিপিএম প্রার্থীর

Read Time:2 Minute

24 Hrs Tv:নিজস্ব প্রতিনিধি: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের লক্ষ্মীর ভাণ্ডার, কন্যাশ্রী, রূপশ্রী, বার্ধক্য ভাতা, সবুজ সাথী নানা প্রকল্পকে বরাবরই রাজ্যের বিরোধী শিবির সমালোচনা করে এসেছে ৷ বিশেষত বামেদের দাবি, বেকারদের চাকরি না-দিয়ে মমতা মুষ্টিমেয় কিছু অর্থ দিয়ে মানুষের মন ভোলাতে চান ৷ এবার বামপ্রার্থীর মুখে লক্ষ্মীর ভাণ্ডারকে আইনে স্বীকৃতি দেওয়ার কথা শোনা গেল ৷


জলপাইগুড়ির সিপিএম প্রার্থী দেবরাজ বর্মনের কথায়, “ক্ষমতায় এলে মা-বোনেদের সম্মানে লক্ষীর ভাণ্ডারকে আইন করব ৷ সেইসঙ্গে ভাতা বাড়িয়ে সাড়ে সাত হাজার করা হবে ৷” “লক্ষ্মীর ভাণ্ডারকে খালি ভাতা বা অনুদান করে রাখলে হবে না। বামেরা ক্ষমতায় আসলে লক্ষ্মীর ভাণ্ডারকে ‘আইন’ করা হবে। যাতে ক্ষমতায় না-থাকলেও সেই অধিকার থেকে মা-বোনেরা বঞ্চিত না হন” এমনই মন্তব্য বাম প্রার্থী দেবরাজের।

শনিবার শিলিগুড়ি পৌরনিগমের অধীন বেশ কয়েকটি জায়গায় প্রচার সারেন দেবরাজ বর্মন। মিছিলের পর বাড়ি বাড়ি প্রচার সারেন তিনি। প্রচারের সময় সাংবাদিকদের মুখোমুখি বাম প্রার্থী বলেন, “আমরা ক্ষমতায় আসলে লক্ষ্মীর ভাণ্ডারকে আইন করব। অন্য রাজনৈতিক দল ক্ষমতায় আসলে সেটা বন্ধ করতে চাইছে। ক্ষমতায় না-থাকলেও সেটা যাতে বন্ধ না-করা যায় সেজন্য আইন করা হবে। মন্ত্রীদের বেতন বৃদ্ধি হয়েছে, মুখ্যমন্ত্রীর বেতন ৮০ হাজার টাকা বৃদ্ধি হয়েছে। তাই ৫০০ টাকা বাড়িয়ে কোনও লাভ হবে না। আমরা লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকার পরিমাণ দেব অন্তত সাড়ে সাত হাজার টাকা।” জলপাইগুড়ি লোকসভা কেন্দ্রে বামফ্রন্টের তরফে প্রার্থী করা হয়েছে তরুণ তুর্কি নেতা দেবরাজ বর্মনকে। দেবরাজ বর্মন জলপাইগুড়ির মহামায়া পাড়ার বাসিন্দা। জেলার ডিওয়াইএফআই’য়ের এই নেতাকে প্রার্থী করেছে বাম শিবির।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *