সেতু দুর্ঘটনায় আহতদের ফেলে মেরামতিতে ব্যস্ত মোরবির সরকারি হাসপাতাল

Read Time:3 Minute

24Hrs Tv, ওয়েব ডেস্কঃ ভয়াবহ দুর্ঘটনায় মোরবি সেতু ভেঙে মৃত্যু হয়েছে ১৪১ জনের। মঙ্গলবার ঘটনার দু’দিন পরে দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শন করতে যাবেন তিনি। মোরবিতে ব্রিজ ভেঙে যাঁরা আহত হয়েছেন, সেই সরকারি হাসপাতালও পরিদর্শন করবেন স্বয়ং মোদি। রাত জেগে হাসপাতাল সাজিয়ে তুললেন কর্মচারীরা। জানা গিয়েছে নিখোঁজ আত্মীয়কে খুঁজতে আসা ব্যক্তিদেরও ঠায় অপেক্ষা করতে হচ্ছে। ঘটনার কথা ছড়িয়ে পড়তেই সমালোচনার ঝড় তুলেছেন বিরোধীরা।
কংগ্রেসের তরফে টুইট করে বলেন, “মঙ্গলবার মোরবির সরকারি হাসপাতালে আহতদের সঙ্গে দেখা করতে যাবেন প্রধানমন্ত্রী। তার আগেই হাসপাতালে মেরামতির কাজ চলছে। রঙ করে টাইলস বসানো হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী ছবি তুলবেন, সেই জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ চেষ্টার কোনও কমতি রাখছে না। তাদের একটুও লজ্জা হচ্ছে না। এত মানুষ মারা গিয়েছেন, তার মধ্যেও উৎসবের তোড়জোড় করছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।”
একই ধরনের কথা বলা হয়েছে আপের তরফেও। হাসপাতাল মেরামতির কাজ চলছে প্রধানমন্ত্রীর ফোটোশুটে যেন কোনওরকম সমস্যা না হয়। এরকম সময়ে মাঝরাতে হাসপাতাল সাজিয়ে তোলার দরকার হত না, যদি গত ২৭ বছর ধরে বিজেপি সরকার কাজ করত, তাহলে এরকম সময়ে মাঝরাতে হাসপাতাল সাজিয়ে তোলার দরকার হত না। সূত্রের খবর, প্রধানমন্ত্রী আসার খবর পেয়েই হাসপাতালের দেওয়াল আর ছাদ চুনকাম করা হয়। নতুন ওয়াটার কুলার কিনে আনা হয়। এও জানা গিয়েছে, আহতদের সরিয়ে সঙ্গে সঙ্গে পালটে দেওয়া হয় বিছানার চাদর। ঝাঁট দিয়ে পরিষ্কার করা হয় গোটা হাসপাতাল।
বিরোধীদের কটাক্ষের মুখে পড়ে কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে এমনটাই সূত্রের খবর। বিনোদ দাপাট নামে এক ব্যক্তি জানান, আমার দুই আত্মীয় ওই সেতু দেখতে গিয়েছিলেন। কিন্তু এখনও তাঁদের কোনও খোঁজ নেই। হাসপাতালে এসে তাদের কথা জিজ্ঞাসা করলেও কোনও উত্তর পাইনি। কারণ সকলে এখন দেওয়াল রঙ করতে ব্যস্ত। প্রধানমন্ত্রী হাসপাতালে আসবেন বলে আমাদের কথার উত্তর দেওয়ার প্রয়োজন নেই তাঁদের। অন্যদিকে, এই দুর্ঘটনার তদন্ত করতে সিট গঠনের আবেদন করা হয়েছে। আগামী ১৪ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্টে এই মামলার শুনানি শুরু হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *